আজ শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ০৬:১৯ পূর্বাহ্ন

Logo
‘জনগণের বিরুদ্ধে যাবে না ভারত’

‘জনগণের বিরুদ্ধে যাবে না ভারত’

‘জনগণের বিরুদ্ধে যাবে না ভারত’

পল্লী জনপদ ডেস্ক॥

চীন রাশিয়া ফ্রান্স ফ্যাক্টর নয়, জনগণের বিরুদ্ধে যাবে না ভারত- সমকালের শিরোনাম এটি। দৈনিক সমকালের সাথে একান্ত সাক্ষাৎকারে এমন মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, বাংলাদেশের জনগণের বিরুদ্ধে প্রতিবেশী বন্ধুরাষ্ট্র ভারত অবস্থান নেবে বলে বিশ্বাস করে না বিএনপি। দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সমকাল পত্রিকাকে আরো বলেছেন, এ দেশের রাজনীতিতে চীন, রাশিয়া ও ফ্রান্স তেমন কোনো প্রভাব বিস্তার করতে পারে বলে মনে হয় না। ফলে তারা তেমন কোনো ফ্যাক্টর নয়।

নির্বাচন ঘিরে অনিশ্চয়তা – দৈনিক মানবজমিনের প্রধান শিরোনাম এটি।

খবরে বলা হচ্ছে ঠিক এক বছর আগে ২০২২ সালের ১৪ই সেপ্টেম্বর নির্বাচন কমিশন (ইসি) ভবনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রোডম্যাপ ঘোষণা করা হয়েছিল। তাতে কমিশনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল ২০২৩ সালের ডিসেম্বরের শেষে বা ২০২৪ সালের জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হবে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। সেই হিসাবে নির্বাচনের বাকি আর মাত্র তিন থেকে চার মাস।

দেশের বর্তমান রাজনৈতিক বাস্তবতায় প্রধান দুটি দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি বিপরীতমুখী। সরকার চাইছে সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন। আর বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলোর দাবি তত্ত্বাবধায়ক বা নির্দলীয় সরকার। এ অবস্থায় পরিস্থিতি কোন দিকে যাবে? ভবিষ্যতই বলে দেবে তা। তবে এ অবস্থায় নির্বাচন ঘিরেও অনেকে দেখছেন অনিশ্চয়তা।

নির্বাচন পর্যবেক্ষণে আগ্রহ কমছে অভিজ্ঞ সংস্থাগুলোর – কালের কন্ঠের শিরোনাম। বিস্তারিত বলা হচ্ছে তহবিল স্বল্পতাসহ একাধিক কারণে নির্বাচন পর্যবেক্ষণে আগ্রহ হারাচ্ছে অভিজ্ঞ নির্বাচন পর্যবেক্ষক সংস্থাগুলো।

সক্রিয় নেই ২২টি অভিজ্ঞ পর্যবেক্ষক সংস্থার সংগঠন ইলেকশন ওয়ার্কিং গ্রুপ (ইডাব্লিউজি)। এর বাইরে কয়েকটি সংস্থার কার্যক্রম বন্ধ আছে। নির্বাচন কমিশনও কয়েকটি সংস্থাকে নিবন্ধন দেয়নি। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, নির্বাচন পর্যবেক্ষণের বিষয়টি বেশির ভাগ সংস্থার কাছে অনেকটা মৌসুমি কাজ বা ব্যবসার মতো। দাতা সংস্থার কাছ থেকে তহবিল মিললে তবেই নির্বাচন পর্যবেক্ষণে আগ্রহী হয় তারা। আবার দাতা সংস্থাগুলোও তাদের বিবেচনায় অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন না হলে তহবিল দিতে চায় না।

এমন পরিস্থিতিতে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নিবন্ধিত পর্যবেক্ষক সংস্থার সংখ্যা বাড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। ২৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় দিয়ে আগ্রহী সংস্থাগুলোর কাছে দ্বিতীয়বারের মতো আবেদন চাওয়া হয়েছে।

তফসিলের আগেই ইসির ৭০ কোটির কেনাকাটা। দৈনিক দেশ রুপান্তরের খবর। বলা হচ্ছে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএম বাতিল হওয়ায় এবার ৩০০ আসনেই ব্যালটে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আয়োজন করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। সেই লক্ষ্যে ব্যালট পেপারসহ ভোটসামগ্রী কেনার প্রক্রিয়া শেষ করেছে সংস্থাটি।

তফসিল ঘোষণার আগেই প্রায় ৭০ কোটি টাকার কেনাকাটা সারবে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি। তবে এর পরিমাণ বাড়তেও পারে। জানা যাচ্ছে ব্যালটে ভোট নিতে দরকার সুই-সুতাসহ ২৩ ধরণের উপকরণ। কাগজ লাগছে প্রায় ৩৩ কোটি টাকার। অ্যাপ তৈরি ও পরিচালনার জন্য খরচ হবে ১৫ কোটি।

সরকারের আওয়াজ বাজারে পৌঁছায়নি – কালের কন্ঠের প্রধান শিরোনাম এটি। সরকার যে কিছু পণ্যের দাম বেঁধে দিয়েছে সে নিয়েই খবরটি।

বলা হয় রাজধানী ঢাকায় গতকাল শুক্রবার বিভিন্ন বাজারে সরকার নির্ধারিত পাঁচটি নিত্যপণ্যের নতুন দাম কার্যকর হতে দেখা যায়নি। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় গত বৃহস্পতিবার ডিম, আলু, পেঁয়াজ ও ভোজ্য তেলের দাম নির্ধারণ করে দেয়। এ ছাড়া চিনির দাম আগেই নির্ধারণ করা ছিল। সরকার নির্ধারিত দাম অনুযায়ী ডিম প্রতিটি ১২ টাকা, প্রতি কেজি আলু ৩৫-৩৬ টাকা, প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৬৪-৬৫ টাকা দামে বিক্রি হওয়ার কথা। এ ছাড়া খোলা চিনি প্রতি কেজি ১২০ টাকা ও প্যাকেটজাত চিনি ১২৫ টাকা এবং প্রতি লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল ১৬৯ টাকা, খোলা তেল ১৪৯ টাকা ও পাম তেল ১২৪ টাকায় বিক্রি করার কথা।

গতকাল রাজধানীর মোহাম্মদপুর, তালতলা ও কারওয়ান বাজারে ঘুরে উল্লিখিত দামে কোথাও এসব পণ্য বিক্রি হতে দেখা যায়নি। আমদানি ও সরবরাহ না বাড়ালে সরকার এবারও পাঁচ পণ্যের দাম কমিয়ে আনতে পারবে না বলে দাবি করেছে ভোক্তা অধিকার নিয়ে কাজ করা সংগঠন ও ব্যবসায়ীরা।

একই খবর এসেছে আরও বেশ কিছু পত্রিকায়। ডিম, আলু ও পেঁয়াজ মিলছে না নির্ধারিত দামে – কালবেলার শিরোনাম।

নিত্যপ্রয়োজনীয় এ পণ্যগুলোর দাম অস্বাভাবিকভাবে বাড়তে থাকায় গত বৃহস্পতিবার প্রতি পিস ডিমের দাম ১২ টাকা, আলুর কেজি ৩৫ থেকে ৩৬ টাকা, দেশি পেঁয়াজের কেজি ৬৫ টাকা নির্ধারণ করে দেয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন না হলে এবার ভোক্তা অধিদপ্তর কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলেও জানান বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। কিন্তু গতকাল শুক্রবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, কোনো দোকানেই নির্ধারিত দামে এসব পণ্য বিক্রি হচ্ছে না। বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, সরবরাহ ব্যবস্থা স্বাভাবিক না হলে নির্ধারিত দাম বাস্তবায়ন করা কঠিন।

সরকারি নির্দেশনার দর মানছে না বাজার – সমকালের প্রধান শিরোনাম। বিস্তারিত হল সরকারের বেঁধে দেওয়া দামে বাজারে মিলছে না ডিম, আলু ও পেঁয়াজ। ব্যবসায়ীরা পণ্য তিনটি বিক্রি করছেন আগের মতোই ইচ্ছামতো দামে।

খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছেন, পাইকারি পর্যায়ে ও আড়তে না কমলে তাদের কম দামে বিক্রি করার সুযোগ নেই। এদিকে দাম কমার খবর শুনে বাজারে গিয়ে হতাশ হচ্ছেন ক্রেতারা। দাম নির্ধারণের পাশাপাশি সরকার কঠোরভাবে বাজার তদারকিরও ঘোষণা দিয়েছে। ভোক্তা অধিদপ্তর, কৃষি বিপণন অধিদপ্তর, প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট সবাই বাজারে তদারকি করবে বলা হলেও গতকাল শুক্রবার ভোক্তা অধিদপ্তর ছাড়া কেউ বাজারে নামেনি। ভোক্তারা বলছেন, সরকার দাম বেঁধে দিয়েই দায় সারছে। তারা নিত্য ঠকেই যাচ্ছেন।

Study finds high level of microplastics in salt – অর্থাৎ গবেষণায় লবণের মধ্যে ক্ষতিকর উচ্চমাত্রার মাইক্রোপ্লাস্টিকের সন্ধান-ডেইলি স্টারের খবর।

বলা হচ্ছে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা প্রতি কেজি নমুনা লবণে ৫৬০ থেকে ১২৫৩টি মাইক্রোপ্লাস্টিকের উপস্থিতি পেয়েছেন, তারা এই নমুনাগুলো সংগ্রহ করেছেন চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার থেকে। বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন জনস্বাস্থ্যের মারাত্মক হুমকি হয়ে উঠতে পারে এই মাইক্রোপ্লাস্টিক।

রিজার্ভের দ্রুত ক্ষয় নিয়ে দ্বিপক্ষীয় অংশীদাররা উদ্বেগে কি – এমন প্রশ্ন করা হয়েছে বণিক বার্তার প্রধান শিরোনামে।

বলা হচ্ছে চলতি অর্থবছরের (২০২৩-২৪) জুলাইয়ে বিদেশী ঋণের আসল ও সুদ হিসেবে প্রায় ২৫ কোটি ৩১ লাখ ডলার পরিশোধ করেছে বাংলাদেশ। বিদেশী ঋণ পরিশোধ বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দ্রুত কমে আসছে দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ। গত অর্থবছরের সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি দেশে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ছিল ২৭ দশমিক ৬৩ বিলিয়ন ডলার। বর্তমানে তা ২১ দশমিক ৭ বিলিয়নে নেমে এসেছে বলে বাংলাদেশ ব্যাংকের চিফ ইকোনমিস্ট ইউনিটের পরিসংখ্যানে উঠে এসেছে।

আবার এ মুহূর্তে দ্বিপক্ষীয় অংশীদারদের কাছ থেকে নতুন ঋণের প্রতিশ্রুতিও তেমন একটা মিলছে না। ইআরডির তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের জুলাইয়ে দ্বিপক্ষীয় বৃহৎ অংশীদারদের মধ্যে জাপান ছাড়া আর কোনো দেশ নতুন করে কোনো ঋণের প্রতিশ্রুতি দেয়নি। বিশেষ করে ভারত, চীন ও রাশিয়ার মতো বৃহৎ অংশীদার দেশগুলোর কাছ থেকে কোনো ঋণেরই প্রতিশ্রুতি এ সময় পাওয়া যায়নি।

আগাম ডলারই ভরসা আমদানিকারকদের -যুগান্তরের প্রধান শিরোনাম। এতে বলা হচ্ছে বাণিজ্যিক আমদানিতে ডলারের জন্য হাহাকার। বাজারে আগাম বা ফরোয়ার্ড ডলার বেচাকেনার প্রভাব পড়েছে। বিভিন্ন ব্যাংকে অগ্রিম ডলার এখন বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকা ৬৪ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১১৪ টাকা পর্যন্ত।

বাণিজ্যিক আমদানির দেনা ও বৈদেশিক ঋণ পরিশোধে ব্যাংকগুলো আগাম ডলার কিনে রাখে। বাণিজ্যিক পণ্য, শিল্পের কাঁচামাল, যন্ত্রপাতি আমদানিতেও এখন একমাত্র ভরসা আগাম কেনা ডলার। এর বেশিরভাগই ব্যবহৃত হয় আমদানির দেনা পরিশোধে। এতে আমদানি পণ্যের খরচ বেড়ে যাচ্ছে। ফলে বাজারে এসব পণ্যের দামও বাড়ছে। অন্যান্য পণ্যের দামেও এর প্রভাব পড়ছে। এতে মূল্যস্ফীতির ওপর চাপ বাড়ছে। বেঁধে দেওয়া সর্বোচ্চ ১১০ টাকা দামেও ব্যাংকে আমদানির ডলার মিলছে না। এমনকি আন্তঃব্যাংকেও পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে বাধ্য হয়েই চড়া দামে এক মাস থেকে এক বছরের আগাম ডলার কিনে রাখতে হচ্ছে।

DSCC declares 2 wards as red zone – অর্থাৎ দুইটি ওয়ার্ডকে ডেঙ্গুর জন্য রেড জোন ঘোষণা করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন। ঢাকা ট্রিবিউনের শিরোনাম এটি। বলা হয় ১৪ আর ৫৬ নম্বর দুটি ওয়ার্ডেই প্রতি সপ্তাহে ১০ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হওয়ায় এমন ঘোষণা ডিএসসিসির। এদিকে নতুন করে ২৪ ঘন্টায় দেশে আরও ১২ জন ডেঙ্গুতে মারা গিয়েছেন, শনাক্ত হয়েছে আরও ২১২৯ জন নতুন রোগী।

কৃষি মার্কেটে কিছুই অবশিষ্ট নেই ব্যবসায়ীদের – মোহাম্মদপুরে ঘটে যাওয়া অগ্নিকান্ড নিয়ে ইত্তেফাকের খবর।

বলা হচ্ছে, ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের কৃষি মার্কেট। এখন মার্কেট জুড়ে শুধুই ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের হাহাকার। চারিদিকে পোড়া গন্ধ। পুড়ে ছাই হয়ে যাওয়া দোকানের মালামাল সরাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন বেশির ভাগ ব্যবসায়ী। কীভাবে ঘুরে দাঁড়াবেন সেই চিন্তা সবার চোখেমুখে। যত দ্রুত সম্ভব পুনর্বাসন এবং মার্কেটের সামনে সড়কের পাশে অস্থায়ী দোকান বসানোর দাবি জানিয়েছেন তারা। তারা আরো বলেন, নতুন ভবন নয়, আগে পুনর্বাসন।

তারুণ্যের রোডম্যাপ শেষে আসছে বিএনপির কর্মসূচী – প্রথম আলোর শিরোনাম। রংপুর ও রাজশাহী অঞ্চলে দুই দিনের ‘তারুণ্যের রোডমার্চ’ শেষে ১৮ সেপ্টেম্বর নতুন কর্মসূচির ঘোষণা দেবে বিএনপি।

আজ শনিবার রংপুর থেকে দিনাজপুর পর্যন্ত, পরদিন রোববার বগুড়া থেকে রাজশাহী পর্যন্ত এই রোডমার্চ হবে। এরপর ‘এক দফা’ দাবিতে আগামী সোমবার যুগপৎ আন্দোলনের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করবে বিএনপিসহ সমমনা দল ও জোট। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গতকাল শুক্রবার সকালে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন।

Why was there such a rush to pass the CSA bill? ঢাকা ট্রিবিউনের শিরোনাম এটি। বলা হচ্ছে নানান সমালোচনার মধ্যেও গত বুধবার রোববার সংসদের পাশ হয়েছে সাইবার সিকিউরিটি বিল ২০২৩, যেখানে অজামিনযোগ্য ধারা রাখা হয়েছে। পত্রিকাটি বলছে সংসদ সূত্রে জানা যায় সিএসএ ওইদিন বিল পাসের তালিকাতেই ছিল না।

অন্যান্য খবর

আন্ত:নগর ট্রেনের দায়িত্বে পুলিশ, ক্ষুব্ধ রেলবাহিনী – সমকালের আরেকটি খবর। বলা হচ্ছে আন্ত:নগর ট্রেনের নিরাপত্তা দেবে পুলিশ। রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী (আরএনবি) আর এ দায়িত্ব পালন করতে পারবে না। ফলে ভাতাও পাবে না। এতে ক্ষুব্ধ রেলের নিজস্ব বাহিনীর সদস্যরা। রেল কর্তৃপক্ষ বলছে আরএনবি রেল পরিচালনায় সম্পৃক্ত জনবল তথা রানিং স্টাফ না তাই তাদের ভাতা পাওয়ার সুযোগ নেই।

No more medical files to carry, hospitals to have your digital record – ইংরেজি দৈনিক দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের প্রধান শিরোনাম এটি। বলা হচ্ছে সরকারি হাসপাতালগুলোতে ডিজিটালি রোগীর তথ্য সংগ্রহের পরিকল্পনা করছে সরকার। এর নাম দেয়া হবে শেয়ারড হেলথ রেকর্ড বা এসএইচআর, এই রেকর্ড শেয়ার করা হবে দেশজুড়ে বেসরকারি হাসপাতালাগুলোর সঙ্গেও। আর সবকিছু সংরক্ষিত থাকবে একটা কেন্দ্রীয় তথ্যভান্ডারে।

এশিয়া কাপে নিজেদের শেষ ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের জয়ের খবর এসেছে পত্রিকাগুলোর প্রথম পাতায়। বাংলাদেশ প্রতিদিনের শিরোনাম – ৬ রানের রোমাঞ্চকর এক জয়, ভারতকে হারিয়ে শেষটা রাঙাল বাংলাদেশ।

যুগান্তর শিরোনাম করেছে ১১ বছর পর এশিয়া কাপে ভারতে হারাল বাংলাদেশ। সূত্র : বিবিসি বাংলা

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017
Developed By

Shipon