আজ রবিবার, ২৩ Jun ২০২৪, ০৮:৪৪ পূর্বাহ্ন

Logo
রাত পোহালেই ভোট উৎসব, প্রস্তুত নির্বাচন কমিশন

রাত পোহালেই ভোট উৎসব, প্রস্তুত নির্বাচন কমিশন

 

রাত পোহালেই ভোট উৎসব, প্রস্তুত নির্বাচন কমিশন

নিজস্ব প্রতিবেদক॥

বরিশাল সিটি করপোরেশন (বিসিসি) নির্বাচন সোমবার (১২ জুন) অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এদিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভোটগ্রহণ চলবে। নগরীর ৩০টি ওয়ার্ডের ১২৬টি কেন্দ্রের সবগুলোতেই ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) চলবে ভোট। এই ১২৬টি কেন্দ্রের মধ্যে ১০৬টিকেই অতি গুরুত্বপূর্ণ বলে ঘোষণা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। সে হিসেবে নিরাপত্তা ব্যবস্থাও নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। ভোটগ্রহণের জন্য সব ধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সাতজন। ভোটের সকালেই প্রার্থীরা সবাই নিজ নিজ কেন্দ্রে ভোট দেবেন।

জানা গেছে, আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মেয়র পদপ্রার্থী আবুল খায়ের আব্দুল্লাহ খোকন সেরনিয়াবাত নগরের কালিবাড়ি রোডের সরকারি বরিশাল কলেজ কেন্দ্রে, জাতীয় পার্টির লাঙল প্রতীকের প্রার্থী ইকবাল হোসেন তাপস গোরস্থান রোডের সৈয়দ আব্দুল মান্নান ডিডিএফ আলিম মাদরাসা কেন্দ্রে, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করীম রূপাতলী হাউজিং আ. রব সেরনিয়াবাত মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে, জাকের পার্টির গোলাপফুল প্রতীকের প্রার্থী মো. মিজানুর রহমান বাচ্চু ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের চহুতপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দেবেন।

এছাড়া টেবিলঘড়ি প্রতীকের স্বতন্ত্র মেয়র পদপ্রার্থী কামরুল আহসান রুপন কালুশাহ সড়কের আলেকান্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে, হরিণ প্রতীকের মো. আলী হোসেন হাওলাদার ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের চহুতপুর ইস্কান্দার শরীফ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে, হাতি প্রতীকের মো. আসাদুজ্জামান বরিশাল নগরের সদর রোডের সিটি কলেজ কেন্দ্রে ভোট দেবেন।

এদিকে, বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠু হবে। ভোটাররা নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারবেন বলে মন্তব্য করেছেন বরিশালের রিটার্নিং কর্মকর্তা হুমায়ূন কবির৷ রবিবার প্রিসাইডিং কর্মকর্তাদের মধ্যে নির্বাচনী সামগ্রী বিতরণের সময় তিনি এ কথা বলেন।

হুমায়ূন কবির বলেন, ‘বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনের পরিবেশ শতভাগ আমাদের নিয়ন্ত্রণে আছে৷ আমরা আশা করছি, কোনো ধরনের দুর্ঘটনা ছাড়াই আমরা নির্বাচন সম্পন্ন করতে পারব। আমি সম্মানিত ভোটারদের আহ্বান জানাব, আপনারা আসুন ভোটকেন্দ্রে। আপনাদের যে নাগরিক অধিকার আছে, সেটি প্রয়োগ করুন। আপনাদের যে পরিবেশ দরকার, সেটি আমরা নিশ্চিত করব৷ সে লক্ষ্যেই কাজ করে যাচ্ছি।’

ভোট পরিচালনার জন্য বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রায় ৪ হাজার ৫০০ সদস্য তৎপর আছেন। ৩০ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রতিটি ওয়ার্ডে দায়িত্ব পালন করবেন। তাছাড়া ১০ জন এক্সিকিউটিভ ও ১০ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট প্রতিটি সংরক্ষিত ওয়ার্ডভিত্তিক দায়িত্ব পালন করবে বলেও জানান এই নির্বাচন কর্মকর্তা।

কালোটাকা ছড়ানোর অভিযোগ তুলছেন কিছু প্রার্থী— এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নেবেন কি না— এমন প্রশ্নের জবাবে হুমায়ূন কবির বলেন, ‘আপনাদের মাধ্যমেই বিষয়টা জানতে পারলাম। প্রার্থীরা আমাদের কাছে অভিযোগ করলে যথাযথ ব্যবস্থা নেব।’

নির্বাচনের দিন ভোট উৎসবের ব্যাপারে কতটা আশাবাদী জানতে চাইলে হুমায়ূন কবির বলেন, ‘ভোট উৎসবের ব্যাপারে আমরা শতভাগ আশাবাদী। আমরা মনে করি উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট অনুষ্ঠিত হবে। কারণ, সম্মানিত প্রার্থীদের সঙ্গে আমি কথা বলেছি।

এছাড়া আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গেও আমরা কথা বলেছি। নির্বাচনের প্রচারে যে আচরণবিধি ছিল, সেটা পালনে প্রার্থীরা ইতিবাচক সারা পেয়েছি। এটার ভিত্তিতে আমরা আশা করছি যে, ওনারা আমাদের সহযোগিতা করবেন। আমি আশা করছি, গাজীপুরের মতো বরিশালের নির্বাচনও মডেল নির্বাচন হবে।’

ক্ষমতাসীন দলের বিভিন্ন নেতা-কর্মী এখনো বরিশালে অবস্থান করছেন। তাঁদের ব্যাপারে কী ভাবছেন— এমন প্রশ্নের জবাবে হুমায়ুন কবির বলেন, ‘আমরা আপনাদের মাধ্যমে তাঁদের তাৎক্ষণিকভাবে বরিশাল ছেড়ে যাওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।’

এবারের নির্বাচনে বরিশাল সিটিতে ভোটার সংখ্যা দুই লাখ ৭৬ হাজার ২৯৮। এরমধ্যে মহিলা ভোটার এক লাখ ৩৮ হাজার ৩০৯। মোট প্রার্থী হয়েছেন ১৬৭ জন, যার মধ্যে মেয়র পদের সাতজন বাদে আছেন সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১১৮ জন এবং সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৪২ জন।

নির্বাচনে ১০ প্লাটুন বিজিবি ছাড়াও আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাড়ে চার হাজার সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017
Developed By

Shipon