আজ রবিবার, ২৩ Jun ২০২৪, ০৮:২৪ পূর্বাহ্ন

Logo
শ্রমিক ফ্রন্টের নেতাদের মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ

শ্রমিক ফ্রন্টের নেতাদের মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ

 

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের নয় নেতার নামে মামলা প্রত্যাহার ও গ্রেফতার নেতাদের মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল এবং সমাবেশ করা হয়েছে। শনিবার (২১ জানুয়ারি) বেলা ১ টায় বরিশাল নগরের অশ্বিনী কুমার হলের সামনে সদররোডে এ কর্মসূচির আয়োজন করে ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান-ইজিবাইকচালক সংগ্রাম পরিষদ ও সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট। পরিষদের প্রধান সংগঠক দুলাল মল্লিকের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) বরিশাল জেলা শাখার সদস্য সচিব ও ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান-ইজিবাইকচালক সংগ্রাম পরিষদের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা ডা. মনীষা চক্রবর্তী, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট বরিশাল জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মানিক হাওলাদার, ইজিবাইকচালক সংগ্রাম পরিষদের ২৮ নম্বর ওয়ার্ড সাধারণ সম্পাদক আইউব আলী, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট বরিশাল জেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, গত ১৯ জানুয়ারি শ্রমিক ফ্রন্ট ও সংগ্রাম পরিষদের বিভাগীয় সমাবেশকে কেন্দ্র করে পাড়ায় পাড়ায় সন্ত্রাসী মহড়া হয়েছে। সেসব বাধা মোকাবিলা করে হাজারো শ্রমিক সমাবেশে যোগদান করেছেন। সেসব হুমকি প্রতিরোধে প্রশাসনের কোনো পদক্ষেপ দেখা যায়নি। অথচ সমাবেশ শেষে এলাকায় ফেরার পর আকস্মিকভাবে কাউনিয়া থানার পুলিশ সংগ্রাম পরিষদের পাঁচজন নেতার নামে ও অজ্ঞাতনামা নয়জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করে একজনকে ইতোমধ্যে গ্রেফতার করেছে। থানায় মামলার এজাহার চাইতে গেলে পুলিশের পক্ষ থেকে কোনো সহযোগিতা পাওয়া যায়নি। যতদূর জানা যায় পুলিশের পক্ষ থেকে রিকশা ভাঙচুর, জনগণের চলাচলে প্রতিবন্ধকতার কথা উল্লেখ করে বাবুল নামে একজনকে বাদী করে এ মামলা দায়ের করা হয়েছে। জব্দ যান হিসেবে একটি তার ছেড়া অটোরিকশা ও প্রমাণ হিসেবে একটি সিসিটিভি ফুটেজ হাজির করা হয়েছে। যেখানে এ মামলার কোনো আসামিকেই দেখা যায় না।

এ ঘটনায় যাদের নামে মামলা করা হয়েছে তাদের মধ্যে দুজন রিকশাচালকের বয়স ষাটোর্ধ্ব এবং তারা শারীরিকভাবে অসুস্থ। বাকিরাও কেউই এ ধরনের কোনো ঘটনার সঙ্গে যুক্ত নন। আকস্মিকভাবে দুপুরে মামলা দায়ের করে বিকেলে কোনো যাচাই বাছাই ছাড়া এ গ্রেফতার অভিযান রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে দাবি করেন বক্তারা। সমাবেশে অবিলম্বে সংগ্রাম পরিষদের নেতাদের হয়রানি করার জন্য এ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান ও গ্রেফতার নেতাদের মুক্তি দাবি করেন পরিষদের নেতারা। সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বরিশাল নগরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে কাউনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রহমান মুকুল বাংলানিউজকে জানান, ২০ জানুয়ারি দুপুরে কাউনিয়া থানাধীন বেঙ্গলের সামনে জসীম উদ্দিন নামে এক রিকশা চালককে মারধর ও রিকশা ভাঙচুরের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় পাঁচজন নামধারী ও আট থেকে ১০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে। এরইমধ্যে অভিযান চালিয়ে ওই মামলায় বাবুল নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

অপরদিকে, বরিশালে বিভাগীয় সমাবেশস্থলে না যাওয়া ব্যাটারিচালিত রিকশাচালকদের সঙ্গে যাত্রীদের হয়রানিরও অভিযোগ উঠেছে। এর আগে বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) সকালে বরিশাল নগরের চাঁদমারি এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে। ঘটনার সময় একটি রিকশায় থাকা বৈদ্যুতিক তার ছিড়ে ফেলাকে কেন্দ্র করে দুই নারী যাত্রীর সঙ্গে শ্রমিকদের বাক-বিত-াও হয়। পরে তারা বিষয়টি সংগ্রাম পরিষদের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা ও বাসদ বরিশাল জেলা শাখার সদস্য সচিব ডা. মনীষা চক্রবর্তীকে জানান। ওই বিষয়ে সংগ্রাম পরিষদের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা ও বাসদ বরিশাল জেলা শাখার সদস্য সচিব মনীষা চক্রবর্তী বলেন, একটি বিষয় শুনেছিলাম, তবে সেখানে আমাদের শ্রমিকরা ছিল কিনা নিশ্চিত নই। দুই নারী যাত্রী আমাদের কাছে এসেছিলেন, তবে কোনো রিকশাচালক আমাদের কাছে আসেনি। তবে যাত্রীদের বিষয়টি শুনে আমরা বলেছি বিষয়টি দেখবো এবং পরবর্তীতে ব্যবস্থা নেবো। তিনি বলেন, আমাদের চার হাজার শ্রমিকের অংশগ্রহণে বিভাগীয় সমাবেশ হয়েছে। এখানে কোনো ধরনের অপ্রতীকর ঘটনা ঘটেনি। পাশাপাশি আমাদের এরকম কোনো নির্দেশনাও ছিল না। তবে কোনো রিকশা শ্রমিকের সঙ্গে কিছু হয়ে থাকলে তারা আমাদের কাছে আসেনি। তারপরও কারও ক্ষতি হয়ে থাকলে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। প্রসঙ্গত, বিআরটিএ কর্তৃক ব্যাটারিচালিত যানবাহনের লাইসেন্সের দাবিসহ ছয় দফা দাবিতে বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) বেলা ১১টা থেকে দুপুর পর্যন্ত ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান-ইজিবাইকচালক সংগ্রাম পরিষদ ও সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের আয়োজনে নগরের বঙ্গবন্ধু উদ্যানে বিভাগীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। একইদিন সকাল থেকে ব্যাটারিচালিত হলুদ অটোরিকশার লাইসেন্স দেওয়ার জন্য সিটি করপোরেশন ফরম বিতরণ শুরু করেছে। তবে এ কার্যক্রম কবে নাগাদ শেষ হবে সে বিষয়ে কিছু জানাতে পারেননি সিটি করপোরেশনের প্রশাসনিক কর্মকর্তা স্বপন কুমার দাস।

শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017
Developed By

Shipon